গুগল অ্যাডসেন্স কিভাবে কাজ করে? Adsense approve করার উপায়


"গুগল অ্যাডসেন্স" শব্দটি প্রায় আমাদের সবার কাছেই বিশেষভাবে পরিচিত। এ বিষয় নিয়ে প্রতিনিয়ত আমাদের নানান কৌতূহল কাজ করে এর সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য। গুগল অ্যাডসেন্স এর প্রক্রিয়া প্রণালী সম্পর্কে আজকের এই লেখায় বিস্তারিত বিষয়াবলী তুলে ধরা হলো:


google adsense approve image,google adsense,google adsense bangla,adsense,google adsense bangla tutorial,google,how to create google adsense account,google hosted adsense,google adsense account,create google adsense for youtube channel,adsense tutorial,how to create google adsense account in bangla,how to create adsense account,how to create google adsense,how to setup google adsense,google adsense tutorial

আজকের লেখায় অ্যাডসেন্সের যে বিষয়গুলো আলোচনা করা হবে তা হলো:

  • গুগল অ্যাডসেন্স কিভাবে কাজ করে?
  • গুগল অ্যাডসেন্স আমাদেরকে কি কি সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে তাদের সাথে কাজ করার জন্য?
  • ওয়েবসাইট ও ইউটিউবের অ্যাড এ কত ভিউ এর জন্য অ্যাডসেন্স কি পরিমাণ অর্থ প্রদান করে?
  • অ্যাডসেন্স কত % অর্থ প্রদান করে পাবলিশার দের?
  • কত Subscriber এর জন্য কত অর্থ প্রদান করে?
  • GoogleAdSense এর Hosted এবং Non Hosted Account কি? এবং কিভাবে এই অ্যাকউন্ট গুলো Approve করতে হয়?
  • অ্যাডসেন্স-এর জন্য সাইট তৈরির পূর্ব শর্তসমূহ কি কি?

গুগল অ্যাডসেন্স কিভাবে কাজ করে?

গুগল অ্যাডসেন্স প্রধানত দুই ভাবে কাজ করে:
  •  Advertiser
  •  Publisher

Advertiser-রা মূলত কোম্পানি বা ব্র্যান্ড। যাদের কাছে বিভিন্ন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস রয়েছে। তাদের এই সার্ভিস গুলোকে তারা গুগল অ্যাডসেন্স-এর অ্যাডের মাধ্যমে প্রমোট করে থাকে। আমরা ইউটিউব ভিডিও-এর উপরে বা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে যে অ্যাড গুলো দেখতে পায় সেই অ্যাড গুলোই Advertiser-রা Google AdSense এর মাধ্যমে প্রমোট করে থাকে।

আর Publisher-রা হলো মূলত Content Creator, যারা ইউটিউব, ওয়েবসাইট বা Play Store-এ বিভিন্ন কন্টেন্ট তৈরি করে, তারা হলো পাবলিশার। কন্টেন্ট বলতে বিভিন্ন ভিডিও, আর্টিকেল ইত্যাদিকে বোঝানো হয়।

গুগল অ্যাডসেন্স আমাদেরকে কি কি সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে তাদের সাথে কাজ করার জন্য?

Advertiser এবং Publisher যেকোনো একটি অথবা দুইটি উপায়েই আপনি অ্যাডসেন্স এর সাথে কাজ করতে পারেন। আপনার যদি কোনো কোম্পানি থাকে তাহলে আপনি সেখানকার প্রোডাক্ট বা সার্ভিস গুলো অ্যাডসেন্স-এর মাধ্যমে প্রমোট করতে পারেন Advertiser হিসেবে। আর যদি আপনার নিজের ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল, অথবা গুগল প্লে-স্টোরের অ্যাপ থাকে এবং সেগুলোতে পর্যাপ্ত ভালো কন্টেন্ট থাকে তাহলে আপনি Publisher হিসেবে কাজ করতে পারেন।
  •  Website
  •  Youtube Channel
  •  Play Store App
google adsense,google adsense bangla,adsense,google adsense bangla tutorial,google,how to create google adsense account,google hosted adsense,google adsense account,create google adsense for youtube channel,adsense tutorial,how to create google adsense account in bangla,how to create adsense account,how to create google adsense,how to setup google adsense,google adsense tutorial

উপরের এই তিনটির যেকোনো এক বা একাধিক জায়গায় কাজ করে আপনি অ্যাডসেন্স থেকে উপার্জন করতে পারেন।

ওয়েবসাইট ও ইউটিউব এর অ্যাডে কত ভিউ এর জন্য অ্যাডসেন্স কি পরিমাণ অর্থ প্রদান করে?

এই প্রশ্নের উত্তর হলো, অ্যাডসেন্স অ্যাডে কত ভিউ এর জন্য কত অর্থ প্রদান করে তা সাধারণত নির্ভর করে আপনার Location এবং Content কোয়ালিটির ওপর। আপনার কন্টেন্ট কোয়ালিটি যদি ভালো হয় এবং অ্যাড Friendly হয় তাহলে কম ভিউ এর জন্যও আপনি ভালো অর্থ পেতে পারেন। অ্যাড Friendly অর্থাৎ আপনি যদি অ্যাডের বিষয়াবলীর সাথে সম্পৃক্ত কন্টেন্ট তৈরি করেন তাহলে অ্যাডসেন্স-এর অর্থ বেশি পাওয়া যায়।

আর লোকেশন এর বিষয়টি হলো আপনি যদি বাংলাদেশ/ভারত থেকে হন তাহলে প্রতি এক মিলিয়ন অ্যাড ভিউয়ের জন্য $250-$350 ডলার এর মত পেতে পারেন। আর যদি ইউরোপ/আমেরিকা থেকে হন তাহলে প্রতি এক মিলিয়ন ভিউয়ের জন্য $750-$900 ডলার পর্যন্ত পেতে পারেন।

অ্যাডসেন্স কত % অর্থ প্রদান করে পাবলিশার দের?

একজন Advertiser যদি অ্যাডসেন্স-কে ১০০ ডলার দিয়ে অ্যাড প্রদর্শন করায় তাহলে সেখান থেকে অ্যাডসেন্স ৪৯% রেখে বাকি ৫১% পাবলিশারদের মধ্যে ভাগ করে দেয়।

কত Subscriber-এর জন্য কত অর্থ প্রদান করে?

অনেকেই আমরা মনে করি যে গুগল অ্যাডসেন্স সাবস্ক্রাইবার এর জন্য অর্থ দিয়ে থাকে। কিন্তু এই ধারণাটি সঠিক নয়। অ্যাডসেন্স Subscriber-এর জন্য কোনো অর্থ প্রদান করে না। আপনার যত মিলিয়ন Subscriber-ই থাকুক না কেন অ্যাডসেন্স আপনাকে সাবস্ক্রাইবার এর জন্য কোনো অর্থ পে করে না। শুধু অ্যাডে ক্লিক ও ভিউ এর জন্য ডলার পে করে থাকে। আপনার অ্যাডে যদি ক্লিক নাও পড়ে তাহলেও আপনি অ্যাড ভিউয়ের জন্য কিছু অর্থ পাবেন।

Google AdSense এর Hosted এবং Non Hosted Account কি? এবং কিভাবে এই অ্যাকউন্ট গুলো Approve করতে হয়?

ইউটিউব চ্যানেল হলো হোস্টেড অ্যাকাউন্ট এবং ওয়েবসাইট হলো নন হোস্টেড অ্যাকাউন্ট। হোস্টেড অ্যাকাউন্ট এর Approval পাওয়া তুলনামূলক সহজ। আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে সেখানে গুগল অ্যাডসেন্সের নিয়ম অনুযায়ী কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করেন তাহলে সহজেই Approval পাওয়া যাবে।

অপরদিকে নন হোস্টেড অ্যাকাউন্ট অর্থাৎ ওয়েবসাইট এ Approval তুলনামূলক বেশি কষ্ট করতে হয়। তবে Approval পাওয়ার পর এটি খুবই সহজভাবে পরিচালনা করা সম্ভব।

গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য সাইট তৈরির পূর্ব শর্তসমূহ কি কি?

অ্যাডসেন্স ব্যাবহার করার চিন্তা মাথায় নিয়ে আপনি যদি ওয়েবসাইট তৈরি করেন সেক্ষেত্রে আপনাকে এর পূর্বশর্ত হিসেবে গুগলের দুটি পূর্বশর্ত পালন করতে হবে। এর একটি হলো গুগলের পলিসি লেভেলে সাইট কন্টেন্ট হিসেবে নিষিদ্ধ ঘোষিত বিষয়গুলো আপনার সাইটে যেন না থাকে এবং দ্বিতীয় শর্ত হলো আপনার সাইটটিকে গুগলের ঘোষিত কোয়ালিটি স্ট্যান্ডার্ডের ডিমান্ড গুলো পূরণ করা।

গুগলের ঘোষণা অনুসারে কন্টেন্ট রেস্ট্রিকশনকে এক কথায় বলে হয়েছে- যেকোনো প্রকার আপত্তিকর কন্টেন্ট যুক্ত সাইট গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য অনুমোদিত না। তবে এর মধ্যে সুস্পষ্ট যে বিধি নিষেধগুলোর উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো হলো

  • পর্ণোগ্রাফি বা অ্যাডাল্ট কোনো কন্টেন্ট সাইটে রাখা যাবে না।
  • কোনো বৈষম্যমূলক, ঘৃণাকর বা ভায়োলেন্ট কন্টেন্ট রাখা যাবে না।
  • বেআইনি বা অপরাধের অধিকার ক্ষুন্ন করে এ ধরনের কন্টেন্ট রাখা যাবে না।
  • ড্রাগ, আগ্নেয়াস্ত্র, অ্যালকোহল বা তামাকবিষয়ক বা এর সাথে সংশ্লিষ্ট কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সংক্রান্ত কোনো কন্টেন্ট রাখা যাবে না।
  • ভিজিটরদের ওয়েব ব্রাউজিং এ বিরক্ত হয় বা তাদের কোনো সাইট উপভোগে ইন্টারফেয়ার করে এমন কন্টেন্ট রাখা যাবে না।

গুগলের ঘোষিত যে কোয়ালিটি স্ট্যান্ডার্ড টি আমাদের অনুসরণ করতে হবে তার শর্তসমূহ হলো নিম্নরূপ:
  • ওয়েবসাইটের কোনো পেইজ আন্ডার কনস্ট্রাকশন থাকা যাবে না। এবং সাইটে কোনো ব্রোকেন লিংক থাকতে পারবে না।
  • সাইটটি এমন হতে হবে যেন ভিজিটরগণ এটি খুব সহজে নেভিগেট করতে পারে।
  • ওয়েবসাইটটির যথার্থ একটি ওয়েব অ্যাড্রেস থাকতে হবে সে সাথে এটি Publicly Accessible হতে হবে।
  • সাইটটি অবশ্যই এমন ভাবে অপটিমাইজ হতে হবে যেন এর অন্যান্য পেইজ লোডিং হতে অতিরিক্ত সময় না নেয়।

যেকোনো অবস্থাতেই আপনার Google Adsense Account এর জন্য ওয়েসাইটটির অনুমোদন করাতে হলে উপরের শর্তগুলো পুরোপুরি ভাবে পূরণ করতে হবে।
[তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট] 

তো বন্ধুরা আশাকরি বুঝতে পেরেছেন গুগল অ্যাডসেন্স এর বিষয়াবলী। তারপরও কোনো সমস্যা হলে নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন, অথবা আমাদের Contact UsFacebook পেজে যোগাযোগ করতে পারেন। পোস্টটি ভাল লাগলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। নিজে জানুন ও অন্যকে জানতে সাহায্য করুন।