About Me

header ads

কম্পিউটার হ্যাং? নিজেই করুন সমস্যার সমাধান

কম্পিউটার হ্যাং সমস্যার সমাধান

আপনার কম্পিউটার কি কিছুক্ষণ পর পর হ্যাং (Hang) করে? কম্পিউটারে কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে গেলেই কম্পিউটার হ্যাং করে বা প্রোগ্রাম ক্রাশ (Crush) করে? তাহলে জেনে নিন এই ধরণের সমস্যা কেন হয় এবং কীভাবে এই ধরণের সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায়। আজ আমরা জানবো কম্পিউটার কেন হ্যাং করে? হ্যাং হলে করণীয় কি? কম্পিউটার কি কারণে হ্যাং করছে তা বোঝার উপায়, হ্যাং সমস্যা থেকে মুক্ত থাকার উপায় ইত্যাদি। তো চলুন শুরু করা যাক...

কম্পিউটার হ্যাং বা কম্পিউটার প্রোগ্রাম ক্রাশ করে কেন? 

কম্পিউটার বিভিন্ন সমস্যার কারণেই হ্যাং করতে পারে। তবে প্রধান কারণ গুলো হলোঃ 

  • কম্পিউটার র‍্যামের উপর অতিরিক্ত চাপ পড়া। 
  • একসাথে একাধিক প্রোগ্রাম (Program) ওপেন করা। 
  • কম্পিউটার লোকাল ডিস্ক (Local disk) অর্থাৎ সি ড্রাইভ (C Drive)-এ পর্যাপ্ত পরিমাণ জায়গা ফাঁকা না রাখা। 
  • অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইন্সটল করে রাখা। 
  • ভাইরাস দ্বারা পিসি আক্রান্ত হওয়া। 
  • অপারেটিং সিস্টেম ও হার্ডওয়্যার আপডেট (Update) না করা। 
  • অপারেটিং সিস্টেম ফাইল ডিলিট হয়ে গেলে। 
  • ভাল মানের প্রসেসর ব্যবহার না করা। 
  • উচ্চ মানের গ্রাফিক্স সম্পন্ন কম্পিউটার গেম ও সফটওয়্যার যদি কম ক্ষমতাসম্পন্ন প্রসেসরের কম্পিউটারে চালানো হয়। 
  • কম্পিউটার হার্ডডিস্ক ও অন্যান্য হার্ডওয়্যারের সংযোগ ত্রুটির কারণে। 

ইত্যাদি বিভিন্ন কারণেই কম্পিউটার হ্যাং বা ক্রাশ করতে পারে। তবে সমস্যা যেমন আছে তেমনি সমাধানও রয়েছে। 

আমরা অনেক সময় পিসিতে কাজ করার সময় পিসি হ্যাং হলে সাথে সাথে রিস্টার্ট দিয়ে দিই। কিন্তু এই কাজ করা মোটেও উচিত নয়। কারণ বেশিরভাগ সময়ই হ্যাং করার পর কিছু সময় অপেক্ষা করলে পিসি পুনরায় কাজ করা শুরু করে। হ্যাং করার সাথে সাথে কম্পিউটার রিস্টার্ট দিলে কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারের উপর ভীষণভাবে চাপ পড়ে। যার ফলস্বরূপ অনেক সময় পিসির বিভিন্ন হার্ডওয়্যারের ক্ষতি হয়। 

কম্পিউটার হ্যাং হলে করনীয়

 
আপনার কম্পিউটার কীবোর্ড থেকে Ctrl+Shift+Esc বাটন গুলো একসাথে চাপুন। তারপর লক্ষ্য করুন Windows Task Manager ওপেন হয়েছে। এবার Processes অপশনটি সিলেক্ট করুন। তারপর লক্ষ্য করুন, যে প্রোগ্রামটির কারণে পিসি হ্যাং করেছে সেটি Not Responding দেখাচ্ছে। এবার সেই প্রোগ্রামটির উপর ক্লিক করে মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করে End Task এ ক্লিক করুন। তাহলে দেখবেন প্রোগ্রামটি বন্ধ হয়ে গেছে। প্রক্রিয়াটি বোঝার সুবিধার্থে স্ক্রীনশট দেখে নিনঃ 


সাধারণত কাজটি দ্রুতই হয়। কিন্তু অনেক সময় কাজটি হতে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হয়। কাজটি না হলে কয়েকবার চেষ্টা করতে থাকুন। 

কম্পিউটার কি সমস্যার জন্য হ্যাং করছে তা বোঝার উপায় 

আপনার কম্পিউটার যদি প্রতিনিয়ত হ্যাং করে তবে তা কোন সমস্যার জন্য হ্যাং করছে তা বোঝার উপায়ও রয়েছে আপনার কম্পিউটারে। আমরা অনেকেই রিলাইবিলিটি মনিটর (Reliability Monitor) সম্পর্কে জানি আবার অনেকেই জানি না। এই কাজটি করা সম্ভব রিলাইবিলিটি মনিটরের সাহায্যে। 

রিলাইবিলিটি মনিটর 

Reliability Monitor উইন্ডোজ কম্পিউটারের একটি ডিফল্ট টুল। এই টুলটি প্রথম যুক্ত হয় উইন্ডোজ ভিস্তার (Windows Vista) সাথে। বর্তমানে প্রায় সব ধরনের উইন্ডোজ-এ এই টুলটি রয়েছে। টুলটি পাওয়ার জন্য Start menu থেকে সার্চ করুন “reliability” অথবা কন্ট্রোল প্যানেল থেকেও সার্চ করতে পারেন। 

কি কি সমস্যার কারণে কম্পিউটার হ্যাং বা প্রোগ্রাম ক্রাশ করেছিল, হঠাৎ করে কেন পিসি রিস্টার্ট নিয়েছিল, কোন সফটওয়্যারের কোন সময় সমস্যা হয়েছিল, সঠিক ভাবে পিসি Shut down কেন হয়নি, ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে প্রতিদিন ও সাপ্তাহিক রিপোর্ট দেখা যায় এই টুলটিতে। সমস্যা গুলো একটি গ্রাফে লাল ক্রসের মাধ্যমে প্রদর্শিত হয়। লাল ক্রস গুলোকে সিলেক্ট করলে নিচে সমস্যা গুলোর Error-এর কারণ উল্লেখ থাকে। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য করুনঃ 


রিলাইবিলিটি মনিটরের আরও একটি মজার অপশন হলো “Check for solutions to all problems”। এই অপশনটিতে ক্লিক করলে কম্পিউটার নিজে থেকেই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবে। তবে এর জন্য ইন্টারনেট সংযোগ করে রাখতে হবে কম্পিউটারে। যদি সমস্যা সমাধান না হয় তাহলে আপনার কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার ড্রাইভারটি আপডেট করে নিতে পারেন। কম্পিউটারের সাথে একটি ডিভিডি দেয়া হয়, যাকে অনেকে মাদারবোর্ড ডিভিডিও বলে। এই ডিভিডি এর মধ্যে যে ড্রাইভার সফটওয়্যার গুলো থাকে সেগুলোকে আপডেট করে নিতে হবে। ডিভিডিটি যে প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত করেছে তাদের ওয়েবসাইট-এ গেলেই আপডেট ভার্সনের ড্রাইভার গুলো পেয়ে যাবেন। 

রিলাইবিলিটি মনিটর বিভিন্ন সমস্যার কারণেই Error ম্যাসেজ দেখাতে পারে। যদি হার্ডওয়্যার রিলেটেড সমস্যা হয় তবে হার্ডড্রাইভ ড্রাইভার আপডেট করতে হবে, আবার যদি গ্রাফিক্স রিলেটেড সমস্যা দেখায় তাহলে গ্রাফিক্স ড্রাইভার আপডেট করতে হবে। এক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখতে হবে যদি আপানার কম্পিউটারের কোনো হার্ডওয়্যার বেশি পুরনো হয় তবে সেই হার্ডওয়্যার পরিবর্তন না করা পর্যন্ত সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয় (যদি সে সমস্যা সেই হার্ডওয়্যারের কারণে হয় তবে)। রিলাইবিলিটি মনিটরের কোনো Error ম্যাসেজ বুঝতে সমস্যা হলে সেই ম্যাসেজটি হুবুহু লিখে গুগল-এ সার্চ করতে পারেন। গুগলের সাহায্যে আপনার সমস্যাটি আরও দ্রুত সমাধান হতে পারে। 

রিলাইবিলিটি মনিটরের সাহায্যে আপনার পিসির হ্যাং সমস্যা সমাধান করতে না পারলেও এর সাহায্যে আপনি জানতে পারবেন কি কারণে আপনার পিসি হ্যাং হয়। 

কীভাবে কম্পিউটার হ্যাং ও প্রোগ্রাম ক্রাশ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব? 

উপরে উল্লেখ করা হয়েছে যে কি কি কারণে কম্পিউটার হ্যাং করতে পারে। সেগুলো লক্ষ্য রাখতে পারলে পিসি হ্যাং করা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। উল্লেখিত বিষয়গুলো ছাড়াও আরও বিভিন্ন কারণে কম্পিউটার হ্যাং বা প্রোগ্রাম ক্রাশ করতে পারে। এখন আমরা আরও কিছু বিষয় সম্পর্কে জানবো যা হ্যাং সমস্যা সমাধান করতে সাহায্য করতে পারে। 

  • কীবোর্ড থেকে Windows+R বাটন গুলো প্রেস করে Run অপশনে recent, %temp%, prefetch, tree ইত্যাদি লিখে ক্লিন করুন। 
  • লোকাল ডিস্ক অর্থাৎ C drive-এ পর্যাপ্ত পরিমাণ জায়গা ফাঁকা রাখুন (৮-১০ জিবির উপরে)। 
  • প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার গুলো ছাড়া সব অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার আনইন্সটল করে দিন। 
  • র‍্যামের জন্য ভালো র‍্যাম ক্লিনার সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন। 
  • অবশ্যই একটি ভালো অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করুন। এবং প্রতিনিয়ত আপডেট রাখুন। 
  • কম্পিউটার একটি নির্দিষ্ট সময় ব্যবহারের পর (২-৩ ঘণ্টা পর পর) রিস্টার্ট করে নিন। 
  • পিসি যদি কোনো প্রোগ্রাম ওপেন করতে সময় নেই তাহলে কিছু সময় অপেক্ষা করুন। বার বার পিসিকে কমান্ড করলে পিসি হ্যাং করে। 
  • আপনার কম্পিউটার-এ ব্যবহৃত উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম প্রতি তিন মাস পর পর সেটআপ করে নিন। 

আশা করি আপনি কম্পিউটার হ্যাং সমস্যা নিয়ে একটু হলেও ধারণা পেয়েছেন। আপনার সমস্যাটি নিচে কমেন্ট করে জানান। এবং আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। এতক্ষণ মনোযোগ দিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

এ ধরনের আরো বিষয়সহ বিজ্ঞান, টেকনোলজি, কি ও কিভাবে?, রিভিউ, লাইফস্টাইল, টিপস অ্যান্ড ট্রিকস্‌, মুভি আপডেট সহ আরো বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানতে নিয়মিত www.ideaworldbd.com সাইটটি ভিজিট করুন। 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপনার যেকোনো প্রশ্ন ও মতামত জানাতে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিন অথবা আমাদের Contact Us পেজে জানাতে পারেন। আমাদের Facebook Page-এ লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ