সফল ক্যারিয়ার গড়তে এই ৫টি দক্ষতা এখনই তৈরি করুন

ক্যারিয়ার গাইডলাইন, career guideline, bangla tutorial, 2020 career guideline, ক্যারিয়ার শিক্ষা, দক্ষতা, সফল ক্যারিয়ার

বর্তমানে প্রতিযোগিতার এই যুগে সফল ক্যারিয়ার (Career) গড়তে সঠিক দক্ষতার (Sikll) বিকল্প নেই। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি বিশেষ কিছু দক্ষতা বা স্কিল খুব কাজে দেয়। আপনাকে আপনার ক্যারিয়ার গঠনের জন্য সব ধরনের খুঁটিনাটি স্কিল যে জানতে হবে তা কিন্তু নয়। কিন্তু এমন কিছু দক্ষতা বা স্কিল রয়েছে যা বর্তমানে প্রায় প্রতি ক্ষেত্রেই প্রয়োজন হয়। আজ আমরা আপনাদের এমনি পাঁচটি দক্ষতা সম্পর্কে জানাতে চলেছি যা পরবর্তীতে আপনার ক্যারিয়ার গঠনে যথেষ্ট ভূমিকা পালন করবে।  

তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কিত জ্ঞান

এখনকার সময়ে প্রায় সব ধরনের অফিসে কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের ব্যবহার খুবই সাধারণ একটি বিষয়। এজন্য আপনি যদি তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কিত জব নাও করেন তবুও আপনার এ সম্পর্কিত বেসিক বা প্রাথমিক পর্যায়ের জ্ঞান থাকা আবশ্যক। যেমনঃ
  • কম্পিউটার ও ইন্টারনেট চালনার বেসিক ধারণা।
  • সঠিক উপায়ে ইমেইল লেখার দক্ষতা।
  • ওয়ার্ডপ্রসেসর প্রোগ্রাম, স্প্রেডশীট প্রোগ্রাম, প্রেজেন্টেশন প্রোগ্রাম (মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট) ইত্যাদি সফটওয়্যার প্রোগ্রামের উপর দক্ষতা অর্জন।

কমিউনিকেশন স্কিল

আপনি যে কাজই করেন না কেন, আপনাকে কোনো না কোনো উপায়ে অন্যদের সাথে যোগাযোগ  রক্ষা করতে হবে। আপনার যোগাযোগ (Communication) স্কিল আপনার ক্যারিয়ারকে এগিয়ে নিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। ভাষার উপর চমৎকার দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে আপনি ক্লায়েন্ট থেকে শুরু করে আপনার প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য সহকর্মীদের সাথে খুব সহজে ভাল সম্পর্ক তৈরি করতে সক্ষম হবেন। 

বর্তমানে আমাদের দেশে বেশিরভাগ চাকরিদাতারাই বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা চেয়ে থাকেন। আপনি যদি নিয়মিত অনুশীলন করেন তবে আপনিও এই দক্ষতাটি অর্জন করতে সক্ষম হবেন। আপনাকে মৌখিক ও লিখিত দুইভাবেই নিয়মিত চর্চা (Practice) করে যেতে হবে। তাহলে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই আপনিও অন্যদের মাঝে নিজেকে তুলে ধরতে পারবেন। আপনার মধ্যে যদি বক্তৃতা বা প্রেজেন্টেশন দেয়ার গুণ থাকে তাহলে তা আপানার জন্য প্লাস পয়েন্ট।

রিপোর্ট লেখার দক্ষতা 

আপনি যে পেশাতেই নিযুক্ত থাকুন না কেন, বিভিন্ন সময় আপনাকে নানা প্রয়োজনে রিপোর্ট লেখার প্রয়োজন হবে। সঠিক ভাবে এ কাজটি করতে পারলে আপনি নিজের ও প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কাজের অগ্রগতির হিসাব রাখতে পারবেন। যা পরবর্তীতে আপনাকে সকলের থেকে এগিয়ে থাকতে সহযোগিতা করবে। 

রিপোর্ট এর ধরণ কাজ ভেদে আলাদা হয়ে থাকে। এজন্য আপনার প্রতিষ্ঠানে যে ধরনের রিপোর্টের ব্যবহার বেশি সেটি অনুসরণ করা চেষ্টা করুন। আপনি এ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত না থাকলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জেনে নিতে পারেন। 

বিভিন্ন পরিস্থিতিতে সমস্যা সমাধান 

আপনার মধ্যে যদি এই দক্ষতাটি থেকে থাকে তাহলে তা আপনার ক্যারিয়ারের জন্য প্লাস পয়েন্ট। পেশাদারি কাজ করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময় নিত্যনতুন সমস্যার সন্মুখিন হতে হয়। এজন্য যে কোনো পরিস্থিতিতে সমস্যা সমাধান করাকে সৃজনশীল (Creative) গুণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। 

বর্তমানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নতুন কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে নিয়োগদাতারা প্রার্থীর এই দক্ষতাটি বিশেষ ভাবে যাচাই করে দেখেন। 

বিশ্লেষণী দক্ষতা 

আপনি যে কাজের উপর দক্ষ বা যে কাজ করছেন বা করবেন সেই কাজের প্রতিটি দিক সম্পর্কে আপনার স্বচ্ছ জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। এরজন্য আপানাকে বিশ্লেষণী ক্ষমতাটি অর্জন করতে হবে। কাজের ক্ষেত্রে যেকোনো বিষয় সম্পর্কে কোনো সিদ্ধান্ত ও মতামতে পৌঁছানোর আগে সে বিষয়ের বিভিন্ন দিক নিয়ে ভালভাবে বিশ্লেষণ করতে হবে এবং প্রয়োজনে অন্যদের সাহায্য নিতে হবে। তাহলে আপনার নিজের চিন্তাভাবনা থেকে বেরিয়ে এসে সে বিষয়টিকে নতুনভাবে উপলব্ধি করতে পারবেন। 

আশা করি বিষয় গুলো আপনাদের মাঝে পরিস্কারভাবে উপস্থাপন করতে পেরেছি। আপনার ক্যারিয়ারের যাত্রা সফল হোক। আইডিয়া ওয়ার্ল্ড বিডির সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। 

এ ধরনের আরো বিষয়সহ বিজ্ঞান, টেকনোলজি, কি ও কিভাবে?, রিভিউ, লাইফস্টাইল, টিপস অ্যান্ড ট্রিকস্‌, মুভি আপডেট সহ আরো বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানতে নিয়মিত www.ideaworldbd.com সাইটটি ভিজিট করুন। 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপনার যেকোনো প্রশ্ন ও মতামত জানাতে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিন অথবা আমাদের Contact Us পেজে জানাতে পারেন। আমাদের Facebook Page-এ লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ